Breaking News
Home / স্থানীয় সংবাদ / খুলনায় করোনা স্যাম্পলের লাইন বৃদ্ধি, বাড়ছে ভোগান্তি

খুলনায় করোনা স্যাম্পলের লাইন বৃদ্ধি, বাড়ছে ভোগান্তি

শেখ ফেরদৌস রহমান
নগর ও জেলায় দিন দিন করেনা রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলছে। সেই সাথে বাড়ছে করোনা জন্য স্যাম্পল লাইন। খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দেখা যায় এমন চিত্র। তবে এসব নমুনা দিতে এসে অনেক রোগী হচ্ছেন ভোগান্তির শিকার- এমন অভিযোগ উঠেছে।
খুলনা আটরা গিলাতলা এলাকার বাসিন্দা জাফর গাজী বলেন, শরীরে জ¦র ও সর্দি নিয়ে সকাল সাড়ে নয়টায় করোনা স্যাম্পল দিতে এসেছি খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। অথচ এখন প্রায় বারোটা, নমুনা জমা দিতে পারিনি। অসুস্থ্য শরীর নিয়ে কতক্ষণ লাইনে দাড়িয়ে থাকা যায়। কাউন্টারে মাত্র চার জন কর্মচারী। তাছাড়া অনেকের শরীরে করোনা নাও থাকতে পারে। কিন্ত এত সময় অপেক্ষা থাকতে থাকতে করোনা না থাকলেও অক্রান্ত রোগীর শরীর থেকে সংক্রমণ ছড়িয়ে যেতে পারে।
করোনা স্যাম্পল পরীক্ষা করতে আসা রোগী আসলাম বিশ্বাস বলেন, চুকনগর থেকে এসেছি সকাল সাড়ে দশটায়, অথচ এখনও লাইন শেষ করতে পারিনি। তাছাড়া অনেক সময়ে ভিআইপি ব্যক্তি পরিচয়ে এসে লাইনে অপেক্ষা না করে সরাসরি পরীক্ষার নমুনা দিয়ে চলে যাচ্ছে। যে কারণে অন্য সাধারণ মানুষের অপেক্ষার সময় বাড়ছে। অনেক সময় দেখা যায় লাইনে অপেক্ষা করতে এসে রোগী আরও বেশি অসুস্থ্য হচ্ছে।
খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা স্যাম্পল সংগ্রহকারী এক কর্মকতা বলেন, আগের তুলনায় রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। গত দশ বারোদিন আগেও প্রতিদিন মাত্র ১৫ থেকে সর্বেচ্চ ৩০ জন রোগী করোনা স্যাম্পল দিতে আসত। সেখানে হঠাৎ করে কোন দিন তিনশ, আবার কোন দিন পাচশ হয়। তাহলে ভোগান্তি তো হবে। পাশাপাশি করোনা নমুনা পরিক্ষার জন্য তাদের আইডি কার্ড নিয়ে নাম ঠিকানা লিপিবদ্ধ করতে হয়। তারপর টাকার রশিদ কাটতে হয়। নমুনা সংগ্রহ করতে হয়। যে কারণে একজন ব্যক্তির পিছনে নূন্যতম থেকে তিন মিনিটের বেশি সময় প্রয়োজন হয়। তাছাড়া অনেক করোনা পরীক্ষা করতে এসে ভিআইপি বা চিকিৎসকদের, রাজনৈতিক তদবির থাকে। যে কারণে লাইনে অপেক্ষাকৃত রোগীদের একটু অপেক্ষা করতে হয়। এ বিষয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা ইউনিটে প্রধান ডাঃ মেহেদী নেওয়াজ বলেন, দিন দিন পিসিআর ল্যাবে নমুনা পরীক্ষার রোগীর সংখ্যা বাড়ছে সপ্তাহর ব্যাবধানে হঠাৎ করে প্রায় কয়েকগুন বেড়েছে প্রতিদিন ২৮০ থেকে ৪শ বা ৫০০ জন রোগী নমুনা পরীক্ষা করতে আসছে। পাশাপাশি বাড়ছে করোনা অক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রতিদিন শতাংশ হিসাব করলে প্রায় ৬০ শতাংশ রোগীর শরীরে করোনা পজেটিভ পাওয়া যাচ্ছে। তারপরও আমরা বিষয়টি দেখছি।
খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডাঃ রাশেদা সুলতানা বলেন, করোনা অক্রান্তর সংখ্যা হঠাৎ বৃদ্ধি পাচ্ছে। যে কারণে স্যাম্পলের স্থানে লাইন বাড়তে পারে। পাশপাশি যতদিন বিকল্প কোন ব্যাবস্থা না হচ্ছে সকলের সামাজিক দুরুত্ব বজায় রেখে স্যাম্পল জমা দিতে সচেতন থাকা প্রয়োজন। পাশাপাশি বিষয়টি নিয়ে দ্রত একটি ব্যবস্থ্য নিব।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*