Breaking News
Home / জাতীয় সংবাদ / করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধিতে খুলনা বিভাগের ১২৬টি ইউপি নির্বাচন স্থগিত

করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধিতে খুলনা বিভাগের ১২৬টি ইউপি নির্বাচন স্থগিত

প্রবাহ রিপোর্টঃ করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির কারণে খুলনা বিভাগের ১২৬ ইউনিয়নের ভোট স্থগিত করছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এছাড়া আরও ৩৭ ইউপির ভোট স্থগিত করা হয়েছে। সেইসঙ্গে স্থগিত করা হয়েছে ৯টি পৌরসভার ভোটও। বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় সংবাদ সম্মেলনে সিদ্ধান্ত জানায় নির্বাচন কমিশন। তবে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা থাকায় লক্ষ্মীপুর-২ আসনের উপ-নির্বাচন আগামী ২১ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে।
বৃহস্পতিবার আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কমিশনের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
এর আগে করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকায় খুলনা বিভাগীয় কমিশনার বাগেরহাট, সাতক্ষীরা ও খুলনা জেলার ১২৩ ইউনিয়নে ভোট বন্ধ করতে অনুরোধ জানিয়েছিলেন।
খুলনা বিভাগের যেসব ইউপিতে ভোট হওয়ার কথা ছিল–
খুলনা কয়রার আমাদি, বাগালী, মহেশ্বরীপুর, মহারাজপুর, কয়রা, উত্তর বেদকাশী ও দক্ষিণ বেদকাশী। দাকোপের পানখালী, দাকোপ, লাউডোব, কৈলাশগঞ্জ, সুতারখালী, কামারখোলা, তিলডাঙ্গা, বাজুয়া ও বানিশান্তা। বটিয়াঘাটার গংগারামপুর, বালিয়াডাঙ্গা ও আমিরপুর। দিঘলিয়ার গাজীরহাট, বারাকপুর, দিঘলিয়া, সেনহাটা, আড়ংঘাটা ও যোগীপুল। পাইকগাছার ষোলাদানা, রাড়ুলী, গড়ইখালী, চাঁদখালী, দেলুটি, লতা, হরিঢালী, ও কপিলমুনি।
বাগেরহাট ফকিরহাটের বেতাগা, লখপুর, পিলজংগ, ফকিরহাট, বাহিরদিয়া মানসা, নলধা মৌভোগ ও শুভদিয়া। মোল্লাহাটের উদয়পুর, চুনখোলা, কোদালিয়া, গাওলা, কুলিয়া ও আটজুড়ি। চিতলমারীর বড়বাড়ীয়া, হিজলা, শিবপুর, চিতলমারী, কলাতলা, চরবানিয়ারী ও সন্তোষপুর। কচুয়ার গজালিয়া, ধোপাখালী, মঘিয়া, কচুয়া, গোপালপুর, রাড়ীপাড়া, বাধাল। রামপালের গৌরম্ভা, বাইনতলা, হুড়কা, মল্লিকের বেড়, বাঁশতলী, উজলপুর, রামপাল, রাজনগর, পেড়িখালী ও ভোজপাতিয়া। মোংলার চাঁদপাই, বুড়িরডাংগা, চিলা, মিঠাখালী, সোনাইলতলা ও সুন্দরবন। মোরেলগঞ্জের পঞ্চকরন, দৈবজ্ঞহাটী, চিংড়াখালী, হোগলাপাশা, বনগ্রাম, বলইবুনিয়া, হোগলাবুনিয়া, বহরবুনিয়া, নিশানবাড়ীয়া, মোরেলগঞ্জ, খাউলিয়া, তেলিগাতী, পুটিখালী, রামচন্দ্রপুর, জিউধরা ও বারইখালী। শরণখোলার ধানসাগর, খোন্তাকাটা, রায়েন্দা ও সাউথখালী।
বাগেরহাট সদরের বারুইপাড়া, বেতরতা, বিষ্ণুপুর, ডেমা, কাড়াপাড়া, খানপুর ও রাখালগাছি। সাতক্ষীরা কলারোয়ার কয়লা, হেলাতলা, যুগীখালী, জয়নগর, জালালাবাদ, লাঙ্গলঝাড়া, কেঁড়াগাছি, সোনাবাড়িয়া, চন্দনপুর ও দেয়াড়া। তালার ধানদিয়া, তেঁতুলিয়া, তালা, ইসলামকাটি, মাগুরা, খেসরা, জালালপুর, খলিলনগর, নগরঘাটা, সরুলিয়া ও খলিষখালী।
এদিকে খুলনা বিভাগে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী। প্রতিদিনই বাড়ছে শনাক্তের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে করোনা আক্রান্ত হয়ে ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৫৭৮ জনের, যা সংক্রমণের শুরু থেকে এ পর্যন্ত বিভাগে সর্বোচ্চ শনাক্ত। এ নিয়ে খুলনা বিভাগে করোনা শনাক্তের সংখ্যা ৩৮ হাজার ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৬৯৫ জনের।
এর আগে করোনার কারণে ভোটের তারিখ পুনর্বিবেচনায় নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দেয় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে আজ জরুরি বৈঠকে বসে কমিশন।
দেশে করোনা শনাক্তের হার ১০ শতাংশের ওপরে। সীমান্তের জেলাগুলোয় সংক্রমণ হার ঊর্ধ্বমুখী। সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে পাঁচ শর্ত দিয়ে দেশব্যাপী বিধিনিষেধের মেয়াদ ১৬ জুন পর্যন্ত বাড়িয়েছে সরকার। সীমান্তের বিভিন্ন এলাকায় চলছে লকডাউন ও কঠোর বিধিনিষেধ।
এর মধ্যেই ২১ জুন ৩৭১টি ইউপি নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। যার মধ্যে উচ্চ সংক্রমিত ৬ জেলায় দেড় শতাধিক ইউনিয়ন রয়েছে। এ অবস্থায় এখনই ভোট না করতে নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও খুলনার বিভাগীয় কমিশনার। ভোটের তারিখ পেছানোর সুপারিশ করে ৫ জুন ইসিকে চিঠি দেয় আইইডিসিআরও।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*