Breaking News
Home / স্থানীয় সংবাদ / নিন্মচাপের প্রভাবে দৌলতপুর জনজীবন বিষন্ন

নিন্মচাপের প্রভাবে দৌলতপুর জনজীবন বিষন্ন

দৌলতপুর থানা প্রতিনিধি ঃ বর্ষাকাল নয়। তবুও থেকে থেমে নেই বর্ষা। বিরতীহীন ভাবে অঝরে মুষলধারে ঝরছে বর্ষা। প্রকৃতির এ অচেনা রুপ দেখে মনে হচ্ছে যেন বর্ষাকাল শুরু হলো। কখনো ভারী বর্ষন আর কখনো হালকা। টানা কয়েক দিনের ভারী আর হালকা মুসলধারা বর্ষা জনজীবনকে অনেকটাই বিষন্ন করে তুলেছে। বাইরে গেলেই হাতে বাধ্যতামূলক ছাতা। সোমবার ভোর রাত্র হতেই নগরীর দৌলতপুরে অঝড়ে ঝড়ে মুসলধারা বৃষ্টি। টানা এই বর্ষনে তলিয়ে গেছে দৌলতপুরের অধিকাংশ এলাকার অলিÑগলির রাস্তাঘাট, নর্দমা-ড্রেনে দেখা দিয়েছে জলাবদ্ধতা। পাশাপাশি বিরতিহীন বৃষ্টিতে পুকুর, মাছ চাষের ঘের ভেসে গেছে। আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে সমুদ্রে সৃষ্ট গভীর নিন্মচাপের কারণে আবহাওয়ার এই পরিবর্তন। টানা বৃষ্টিতে দৌলতপুরসহ আশপাশের এলাকার বিভিন্ন রাস্তায় ও অলিগলিতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। বিশেষ করে নগরীর দৌলতপুরের আঞ্জুমান রোড, আমতলা মোড়, ঋষিপাড়া মোড়, সরদার লেন, দৌলতপুর খান রোড, মুহসীন মোড়, কল্পতরু মাঠ চত্বর ,কৃষি কলেজ কবরখান সংলঘœ রোড়, হোসেন শাহ রোড, দেয়ানা উত্তরপাড়া মাঠ চত্বর, গাজীবাড়ি মোড়, পাখির মোড়, আসাদের মোড়, যশোর মোড়, চুন্নুর বটতলা, পাবলা তিন দোকানের মোড়, ডে নাইট কলেজ মোড়, সবুজ সংঘ মাঠ চত্বর, পাবলা বনিকপাড়া, কুলিবাগান মোড়, মধ্যডাঙ্গা নগর, পালপাড়া মোড়, রেলিগেট মোড়সহ অনেকাংশেই জলবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। সৌরভ নামের চাকুরীজীবি জানান, টানা বৃষ্টিতে জনজীবন অনেকটাই বিষন্ন হয়ে উঠেছে। রাস্তা সহ বাজারে চলাফেরা করা দুঃস্কর। দৌলতপুর খান রোডের বাসিন্দা আজাদ জানান, কোন রকম একটু ভারী বর্ষন হলেই রাস্তায় হাটু সমান পানি জমা হয়। আমাদের এখানে সেই অনেক আগেরকার চিকনসরু ড্রেন ছিল। তার প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে। আধুনিক বা নতুন কোন ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকার কারনে এই অবস্থা। এই ভারি বষর্নে রাস্তার মোড়ে মোড়ে পানি জমে গেছে। অনেকে শংকিত জলবদ্ধতায় ডেঙ্গু আবার গ্রাস না করে। পথচারীরা জানান, বৃষ্টির কারনে অনেকই প্রয়োজন ছাড়া ঘর হতে বের হয়নি। দৌলতপুর বাজারে সৃষ্টি হয়ে স্যাতস্যাতে পরিবেশের যার দরুন ক্রেতা বিক্রেতা এই বৃষ্টির কারন চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে। আলু বিক্রেতা বাবু বলেন, হঠাৎ এই বৃষ্টির কারনে বাজার প্রায় ক্রেতা শূন্য। বেচাকেনা খুবই কম। টানা এই বৃষ্টির কারণে মানুষ ঘর হতে বের হয়নি।
খুলনা আঞ্চলিক আওহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সিনিয়র আবহাওয়াবিদ আমিরুল আজাদ বলেন, খুলনায় ১৩ সেপ্টেম্বর সকাল ৬ টা থেকে ১৪ সেপ্টেম্বর সকাল ৬ টা পর্যন্ত গড় ২৬ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে এবং সকাল ৬টা হতে দুপুর ১২ পর্যন্তÍ গড় ৩৪ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে। বঙ্গোপসাগরে একটি গভীর নিন্মচাপ অবস্থানরত আছে যা ভারতের উড়িষ্যা, পশ্চিমবঙ্গের উপকূল এলাকায় অবস্থান করছে। যা উড়িষ্যার উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে যাচ্ছে। এই কারনেই এই বৃষ্টি ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে যা আরো দু’ তিন ধরে অব্যহত থাকবে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*