Breaking News
Home / স্থানীয় সংবাদ / শীতের আগমনে নগরীর মার্কেটগুলো গরম কাপড়ের চাহিদা বেড়েছে

শীতের আগমনে নগরীর মার্কেটগুলো গরম কাপড়ের চাহিদা বেড়েছে

শেখ ফেরদৌস রহমান
হঠাৎ করে শীতের হাওয়া বইতে শুরু করছে, সেই সাথে শীতের গরম কাপরের ও চাহিদা বাড়ছে। নগরীর মার্কেটগুলোতে বিক্রি শুরু হয়েছে গরম কাপর।এই গরম কাপড়গুলোর দাম ও একটু বেশি নেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করছেন অনেক ক্রেতারা। সরোজমিনে দেখা যায়, নগরীরর বিভিন্ন ফুটপাত থেকে শুরু করে খুলনা রেলওয়ে মার্কেট, এ জব্বার মার্কেট, স্টেডিয়াম এলাকা ও নিক্সন মার্কে নামে পরিচিত। মার্কেটগুলোতে শীতের কাপড়ের চাহিদা চোখে পড়ার মত।
গরম কাপড় ক্রয় করতে আসা সুমন হোসেন বলেন, হঠাৎ করে রাত্রের বেলায় ও সকালে ভালভাবে শীতের আগমন লক্ষ করা যাচ্ছে। যে কারণে একটু মার্কেটে এসেছি গরম কাপড় বা ফুল হাতা গেঞ্জি ক্রয় করতে। তাছাড়া বাড়ীতে ছোট বাচ্চা রয়েছে তার ও শীতের কাপড় প্রয়োজন গত বছরের কাপড় গুলো অনেক ছোট হয়ে গেছে।তবে দোকানীরা গেল বছরের থেকে এ বছর গরম কাপড়ের দাম অনেকটা বেশি চাচ্ছে।বিশেষ করে ছোট বাচ্চাদের জন্য গরম কাপড়।তবে আরেকটি বিষয় আমার মনে হচ্ছে এখানে সব দোকানীরা একই দামে বিক্রি করছে। এটি তাদের একটি সিন্ডকেট কারন একই ধরনে কাপড় সব দোকানে একই ধরনের দাম হাকাচ্ছে।তঅচাড়া কিছু বলতেই বলছে এখন এবছরে কোন গরম কাপড়ের আমদানি নেই।গত বছরের কাপড় বেল্ট প্রতি আট থেকে দশ হাজারের বেশি দামে ক্রয় করতে হয়েছে।একই অভিযোগ করে গরম পোশাক ক্রয় করতে আসা রহিমা বেগম তিনি বলেন,শহরে তুলনায় গ্রামে মনে হচ্ছে একটু বেশি শীতের হাওয়া যে কারনে।ভেবেছিলাম আগে মার্কেটে আসলে হয়তো কম দামে গরম পোশাক ক্রয় করতে পারবো। তবে মনে এখন থেকে ব্যবসায়িরা বেশি দাম চেয়ে নিচ্ছে। তাছাড়া সব সময়তো আর শহরে আসা হয়না যে কারনে এসেছি তা তো বেশি দাম হলে ও ক্রয় করতে হবে,তবে ফুটপাতের ভ্যনে একটু কমে পোশাক বিক্রয় করছে।
পোশাক বিক্রেতা গোলাম ফারাজী বলেন, এ বছর এখন ও করে নতুন করে গরম পোশাকা আমদানী করা হয়নি। তাছাড়া গত বছর করোনা প্রকোপের কারণে গত বছরে তেমন পোশাকের বেল্ট আমদানী করা হয়নি আর যে বেল্ট পেয়েছি তা চাহিদার থেকে অনেক কম। আর যেসব বেল্ট পোশাক আমদানী হয়েছিল তা আমাদের বেল্ট প্রতি আট থেকে দশ হাজার টাকা বেশি দামে ক্রয় করতে হচ্ছে। তাছাড়া এবছর ও যদি এমন অবস্থা হয় তাহলে এর থেকে অধিক দামে পোশাক ক্রয় করতে হবে। এখানে ইচ্ছা করে বেশি দামে পোশাক বিক্রয় করা হচ্ছেনা আমরা যে দামে মাল ক্রয় করব তার থেকে একট বেশি দামে তো বিক্রয় করব। তাছাড়া ছোটদের পোশাকের চাহিদা অনুযায়ী সেভাবে আমরা মাল না পাওয়ার কারনে এই ছোট বাচ্চাদের পোশাক একট বেশি দামে বিক্রয় করা হচ্ছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*