Breaking News
Home / স্থানীয় সংবাদ / বাড়ছে কিশোর গ্যাংয়ের তৎপরতা : বাড়ছে উদ্বেগ

বাড়ছে কিশোর গ্যাংয়ের তৎপরতা : বাড়ছে উদ্বেগ

র‌্যাবের অভিযানে কিশোর গ্যাং ‘কিং অব রূপসা’র ১০ সদস্য আটক

কামরুল হোসেন মনি
নগরীতে বাড়ছে কিশোর গ্যাংয়ের তৎপরতা। বিপথগামী শিশু ও তরুন সমাজের একটি বড় অংশ এখন গ্যাং কালচারের সঙ্গে যুক্ত। চিকি গ্যাং, ফরাজী গ্যাং, ডেঞ্জার বয়েজ, টিপসি বয়েজ, গোল্ডেন বয়েজ, কিং অব রূপসা এরকম বিভৎস নাম দিয়ে কিশোর অপরাধীরা পাড়া মহল্লায় নিজেদের আধিপত্য জানান দিচ্ছে। কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা ছিনতাই, চাদাবাজি, মাদক সেবন ও বিভিন্ন ধরনের অপরাধের সাথে সম্পৃক্ত হয়ে পড়েছে। তাদের এসব কান্ডের জন্য কিশোর অপরাধীদের পরিবারের অভিভাবকরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন।
গত ২৩ নভেম্বরর রাতে র‌্যাব-৬ নগরীর রূপসা ব্রিজ এলাকায় অভিযান চালিয়ে কিশোর গ্যাং ‘কিং অব রূপসা’র এর ১০ সদস্যকে আটক করেছেন। ওই সব সদস্যরা নগরীতে ছিনতাই, মাদক সেবন ও নানা অপরাধের সাথে সম্পৃক্ত রয়েছে। আটককৃত কিশোর গ্যাংয়ের কাছ থেকে মাদক, নেইল কাটার, চিমটা চাকু, মোবাইল ফোন, সিগারেট, মানিব্যাগ, টর্চ লাইট, ব্রেসলাইট, লাইটার, গাড়ির চাবি, তিনটি মোটরসাইকেল এবং নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়। আটককৃত কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা হলো- লবনচরা থানাধিন আল আমিন সড়ক সুইচগেট এলাকার মৃত আশরাফ হাওলাদারের ছেলে মোঃ শাহীন হাওলাদার (১৭), মোক্তার হোসেন সড়কের সুলতান আলী শেখের ছেলে শফিকুল ইসলাম অপু (১৭), মোঃ নাসির হাওলাদারের ছেলে মোঃ পলাশ হাওলাদার (১৭), মোঃ রুহুল আমিনের ছেলে মোঃ মেহেদী হাসান রিমন (১৭), আকমান শেখের ছেলে হৃদয় শেখ (১৭), মোঃ রফিকুল ইসলামের ছেলে মোঃ হৃদয় (১৬), শফিকুল ইসলাম বাদলের ছেলে মোঃ মিরাজুল ইলাম রাতুল (১৭), শীপ ইয়ার্ড মোড় এলাকার মোঃ আব্দুল ওহাব শেখের ছেলে মোঃ রাতুল ইসলাম জিসান (১৫), কাদের ভান্ডার গলির মোঃ রফিকুল ইসলাম রাজার ছেলে মোঃ মৃদুল হাসান তনু (১৭), ইসলামবাগ সড়কের মোঃ মিরাজ গাজীর ছেলে মোঃ ফেরদৌস গাজী (১৭)।
বুধবার (২৪ নভেম্বর) দুপুরে র‌্যাব-৬ এর অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মুহাম্মদ মোসতাক আহমদ প্রেস ব্রিফিংয়ে কিশোর গ্যাং ‘কিং অব রূপসা’ এর সদস্যদের নানা অপরাধের বিষয় তুলে ধরেন। এর আগেও গত ৭ নভেম্বর র‌্যাব-৬ নগরীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে কিশোর গ্যাংয়ের ১২ জন কিশোর ও একজন কিশোরীকে আটক করেছিলেন।
র‌্যাব-৬ এর অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মুহাম্মদ মোসতাক আহমদ প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেন, ২৩ নভেম্বর রাত আড়াইটার দিকে সদর কোম্পানীর একটি অভিযানিক দল নগরীর লবনচরা থানাধীন খানজাহান আলী সেতুর নিচ থেকে ‘কিং অব রূপসা’ নামক কিশোর গ্যাংয়ের ১০ সদস্যকে আটক করেছেন। সদর কোম্পানী কমান্ডার এসপি মাহফুজুল ইসলাম ও স্কোয়াড কমান্ডার লেঃ মোঃ আবুল কালাম আজাদের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়। তিনি জানান, আটককৃতরা জিজ্ঞাসাবাদে জানায় তাদের এই গ্রুপে ২০-২৫ জন সদস্য রয়েছে। এরা সবাই মধ্যবিত্ত পরিবারের বখে যাওয়া সন্তান। তারা পেশাগতভাবে কেউ কেউ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র, কেউ কেউ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ড্রাপ আউট আবার কেউ কেউ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কর্মী। ওইসব কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা বিভিন্ন ধরনের মাদকদ্রব্য সেবনসহ ছোট অস্ত্র ব্যবহার করে ছিনতাই, ভয়ভীতি প্রদর্শন, এলাকার প্রভাব বিস্তার ও বিভিন্ন সমগোত্রীয় গ্রপের সাথে প্রতিযোগিতামুলক কর্তৃত্ব স্থাপন কার। এমনকি তাদের উদ্দেশ্যে হাসিলের জন্য নিজেদের বাবা-মাকেও হেনস্থা করতে পিছপা হয় না। এলাকায় স্থানীয় মুরব্বী ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সম্মান প্রদর্শন তো করে-ই না, বরঞ্চ ক্ষেত্রমতে তাদের তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য ও অপমান করে থাকে বলে অভিযোগ রয়েছে। র‌্যাব-৬ এর অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মুহাম্মদ মোসতাক আহমদ বলেন, র‌্যাবের পাশাপাশি সকল স্তরের মানুষকে কিশোর গ্যাং ও কিশোর অপরাধ দমনে এগিয়ে আসতে হবে। বিশেষ করে নিজেদের সন্তানদের প্রতি খেয়াল রাখা, তাদের গতিবিধি লক্ষ্য রাখা এবং কিশোর অপরাধের সঙ্গে জড়াতে পারে এমন সকল কিছু থেকে তাদেরকে দুরে রাখার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে। পথভ্রষ্ট এই কিশোর কিশোরীরা মদ, গাজা, ইয়াবা, হিরোইনসহ ভয়ঙ্কর মাদক সেবনসহ বিভিন্ন সামাজিক অপরাধে নিজেদের জড়িয়ে ফেলছে। র‌্যাবের অধিনায়ক বলেন, র‌্যাব কিশোর গ্যাং নামক অপসংস্কৃতির বিরুদ্ধে জোরালো অভিযান পরিচালনা করেছে। যারা কিশোর গ্যাংয়ের রূপান্তর অর্থাৎ পৃষ্ঠপোষক তাদেরও ছাড় দেয়া হবে না।
র‌্যাব-৬ অধিনায়কের ব্রিফিংকালে উপস্থিত ছিলেন, উপ অধিনায়ক মেজর মাসুদ হায়দার, সদর কোম্পানী কমান্ডার এসপি মাহফুজুল ইসলাম, সদর কোম্পানী স্কোয়াড কমান্ডার লেঃ মোঃ আবুল কালাম আজাদ, সিনিয়র সহকারি পরিচালক লিগ্যাল ও মিডিয়া সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার মোঃ বজলুর রশীদ।
উল্লেখ্য, গত ৭ নভেম্বর রাত সাড়ে ১১টায় র‌্যাব-৬ (সদর কোম্পানী) একটি টিম নগরীর পুরাতন রেল স্টেশন, ৭নং ফেরী ঘাট (৫ নং মাছ ঘাট) ও নিরালা আবাসিক এলাকা হতে কিশোর গ্যাং ও কিশোর অপরাধের সাথে জড়িত কয়েকটি সংঘবব্দ দলের কিশোর কিশোরীদের আটক করে। এর মধ্যে ১২ জন কিশোর ও একজন কিশোরী ছিলো। কিশোর গ্যাং ও কিশোর অপরাধ দমন আভিযানে ঘটনাস্থল হতে বেশ কিছু মাদক সেবনের আলামত এবং কিশোর গ্যাংদের নিকট হতে ধারালো ছুরি উদ্ধার করতে র‌্যাব-৬ সক্ষম হয়।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*