Breaking News
Home / স্থানীয় সংবাদ / শিরোমনি বাজারে শীতে মাছের সরবরাহ কম, দাম বাড়তি

শিরোমনি বাজারে শীতে মাছের সরবরাহ কম, দাম বাড়তি

সাইফুল্লাহ তারেক, আটরা গিলাতলা প্রতিনিধি ঃ শীতে পুকুর ও জলাশয়ের মাছ ধরা ব্যাহত হওয়ায় নগরীর খানজাহান আলী থানার সবথেকে বড় মাছ বাজার শিরোমনি মাছের আড়তগুলোতে কমেছে মাছের সরবরাহ। ফলে সব ধরনের মাছের দর কেজিতে দাম বেড়েছে ৩০ থেকে ৪০ টাকা। গিলাতলা গ্রামের জেলে মোঃ হযরত আলী বলছেন, তীব্র ঠা-ায় পুকুর-জলাশয়ে নামতে পারছেন না। আর এতেই বেড়েছে দর। মাছের দর বাড়ায় চাষিরা খুশি হলেও ক্রেতারা আছেন বেকায়দায়। এদিকে ঠা-ার কারণে চাষ করা মাছে ভাইরাস রোগ দেখা দেওয়ায় চিন্তায় পড়েছেন এ এলাকার মৎসচাষিরা। শিরোমনি বাজারের পাইকারি আড়তে মাছের প্রতি কেজি দাম রুই ২২০ টাকা, কাতল ২৩০ টাকা, পাঙ্গাশ ১৩০ টাকা, মৃগেল ১৯০ টাকা, সিলভার কার্প ১৩০, শিং ও মাগুর ৪৫০ টাকা, বোয়াল ৫৫০ টাকা, বিগহেড ১৩৫, জাপানি কাপ, ১৪০, তেলাপিয়া, ১২০ টাকা, চাষের কৈ ১৬০ টাকা এবং টাকি ২৪০ টাকা। গেল সপ্তাহ ধরেই তীব্র ঠা-া অনুভূত হচ্ছে। কনকনে ঠা-ায় পুকুর জলাশয়ে নামতে পারছেন না জেলেরা। এতেই সরবরাহ ঘাটতি দেখা দিয়েছে মাছ বাজারে। নগরির আড়ংঘাটা, বড়ইতলা, জামিরা, দিঘলিয়ার বারাকপুর, লাখোহাটিসহ বিভিন্নস্থান থেকে শিরোমনি মাছের আড়তে শীত উপেক্ষা করে যারা মাছ নিয়ে আসছেন অধিক চাহিদার কারণে তা কিনতে হুমড়ি খেয়ে পড়ছে ক্রেতারা। বাজারের অনেক পুরাতন মাছ বিক্রেতা মোঃ জামাল মোল্লা বলেন, বাজারে মাছ নেই। শীতের কারণে গাড়ি আসতে পারছে না। ফলে সব মাছেরই দাম কিছুটা বেড়েছে। দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই। শীত কমলেই আবার মাছের দাম স্বাভাবিক হয়ে যাবে। অপর ব্যবসায়ী মোঃ মুরাদ বলেন, শীতের কারণে খুব বেশি মাছ ধরা পড়ছে না। ফলে সরবরাহ কম হওয়ায় দামটা বেড়েছে। আলী আজগর নামের এক মাছ বিক্রেতা বলেন, যত দিন যাচ্ছে মাছের সরবরাহ কমছে। বাজারে মাছের আমদানি না বাড়লে দাম কমবে না। উল্টো প্রতিদিন দাম বাড়তে থাকবে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*