Breaking News
Home / স্থানীয় সংবাদ / খুলনা সদর হাসপাতালে ময়লা আবর্জনার স্তূপ : মারাত্মক দুগর্ন্ধে অতিষ্ট পথচারী

খুলনা সদর হাসপাতালে ময়লা আবর্জনার স্তূপ : মারাত্মক দুগর্ন্ধে অতিষ্ট পথচারী

শেখ ফেরদৌস রহমান : নগরীর কমরেড রতন সেন রোডস্থ খুলনা জেনারেল হাসপাতালের সড়কে প্রধান ফটকের পাশে ডাস্টবিনের ময়লা আবর্জনার স্তূপ পড়ে আছে। এতে করে হাসপাতালে আগত রোগীসহ চলাচলের সময়ে পথচারিদের দুর্গন্ধে দুর্বিষহ হয়ে উঠছে জনজীবন। এমনকি ময়লা আবর্জনার এই স্তূপ সকালে সিটি কর্পেরেশনের গাড়ী নিয়ে গেলেও দুর্গন্ধ আর দুর হচ্ছেনা। সরেজমিনে দেখা যায় গতকাল বেলা সাড়ে এগারোটায় সদর হাসপাতালে আগত প্রতিটি মানুষ গন্ধে মুখে কাপড় দিচ্ছেন আর থুতু ফেলছেন। এমনকি তীব্র গন্ধে এক নারী বমি করে অজ্ঞান হয়ে পড়েন। পাশাপাশি সকলে স্থানীয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে ভৎসনা করছেন। হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীর স্বজন সোহেল রানা বলেন, সদর হাসপাতালে আসছিলাম স্ত্রীকে নিয়ে গাইনী ডাক্তারের কাছে। তবে হাসপাতালে প্রবেশের মুখে হঠাৎ মারাত্মক দুর্গন্ধ বের হচ্ছে। কোন রকম নাক মুখ ঢেকে হাসপাতালে ১১১ নং কক্ষে আসি এখানেও একই গন্ধ। মুলতঃ আবর্জনার স্তুপগুলো পচে বৃষ্টির পানির সাথে সংমিশ্রনে পানি চলাচলের কোন ব্যবস্থা না থাকায় এমনটি হচ্ছে। তাছাড়া গুরুত্বপূর্ণ ব্যস্ততম সড়কটি যেখানে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে। অথচ সড়কটির অর্ধেক জায়গা জুড়ে আছে ডাষ্টবিনের ময়লার স্তূপে রোডের এমন চিত্র এ যেন দেখার কেউ নেউ ফলে আশঙ্কা রয়েছে স্বাস্থ্য ঝুঁকির। পাশাপাশি সড়কটি আয়তনে অনেকটা চিপা তারপরও ডাষ্টবিন ও ময়লা আবর্জনাসহ মারাত্মক র্দুগন্ধ থাকে সড়কে তাহলে মানুষ কিভাবে চলাচল করবে। এই ডাষ্টবিনের পাশে পুলিশ খুলনা সুপারের কার্যালয়, রয়েছে অথচ স্থানিয় কতৃপক্ষ এই ডাষ্টবিনটি সরিয়ে রাখার ব্যাপারে বরাবর উদাসিন রয়েছে। সড়কে চলাচলে পথচারি মাসুম হোসেন বলেন, এই জায়গাটিতে ময়লা আবর্জনার ডাষ্টবিন বছরের পর বছর ধরে রয়েছে। তাছাড়া বর্ষার মৌসুম আসলে অতিরিক্ত পচা দুর্গন্ধ বের হয় এবং বর্তমান সময়ে করোনার যে ভয়াবহ প্রকোপ বাড়ছে। এ সময়ে একটি সরকারী স্বাস্থ্য সেবা মূলক প্রতিষ্ঠানের পাশে এই দুর্গন্ধযুক্ত ডাষ্টবিন রাখা উচিত না। শহরে ও তার আশেপাশে জায়গার এত অভাব যে একটি হাসপাতালের সামনে রাখতে হচ্ছে। পাশপাশি ময়লা স্তূপের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় দুর্গন্ধের কারণে সাধারণ মানুষকেও মুখে কাপড় গুঁজে রাখতে হয়। আশপাশের মুদি মনোহরী দোকান, হোটেল ও বাড়ি ঘরের ময়লা আবর্জনা এখানে এসে ফেলা হয়। ফলে এ দুর্গন্ধের সৃষ্টি আরো বেশি হচ্ছে। এ সকল ময়লা আবর্জনা পঁচে দুর্গন্ধ ও নানা রকম রোগ জীবানু ছড়াচ্ছে। ময়লা-আবর্জনার ময়লার দুর্গন্ধে হাসপাতালে সুস্থ্য মানুষও অসুস্থ্য হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়। তাছাড়া হাসপাতালে ভর্তি রোগীদের থাকার ব্যবস্থা থাকলেও পচা ময়লার দুর্গন্ধের জন্য তারা থাকতে পারেনা বলে অভিযোগ রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে খুলনা সিটি কর্পেরেশনের ২১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলহাজ¦ শামসুজ্জামান মিয়া স্বপন বলেন, আমরা সদর হাসপাতালের সামনের থেকে এই আবর্জনার স্তুপ ডাষ্টবিনটি সরিয়ে ফেলার জন্য চেষ্টা করছি। তবে ভাল কোন জায়গা পাচ্ছিনা। তাছাড়া খুলনা সিভিল সার্জন আমাকে একটি জায়গা নির্ধারণ করে দেয়ার কথা ছিল। তবে জায়গার অভাবে এমন সমস্যা তৈরি হচ্ছে। তবে দ্রুত একটি ব্যবস্থা নিব এখন দুর্গন্ধ দুর করার জন্য আমি লোক পাঠিয়ে দিব। বিষয়টি নিয়ে খুলনা সিটি কর্পেরেশনের প্যানেল মেয়র-২ আলী আকবার টিপু বলেন, একটা হাসপাতালের সামনে কখনও ময়লা আবর্জনা স্তূপ রাখা উচিনা না।্ এটা স্থানীয় কাউন্সিলর দেখবে তারপর ও আমি বিষয়টি কনজারভেন্সি শাখাকে বলব। দ্রুত যেন ডাস্টবিন সরিয়ে নেয়া হয়। এবিষয়ে খুলনা সিভিল সার্জন ডাঃ সুজাত আহমেদ বলেন, ময়লা আবর্জনা বা ডাস্টবিনের জায়গা আমার নির্ধারণ করার কোন ক্ষমতা নেই। একটি স্বাস্থ্য কেন্দ্রর সামনে এভাবে ময়লা রাখা উচিত না। এসব বিষয় সিটি কর্পেরেশন দেখবে। আমি এই ময়লার ডাস্টবিন সরিয়ে ফেলার জন্য বার বার অনুরোধ করছি।এখন ও কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা গ্রহন করেনি।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*